Bengal Breaking News
স্বাস্থ্য

যোগী রাজ্যে চিকিৎসার হাল, কবরস্থ করার আগে নড়ে উঠলেন মহম্মদ ফারকান নামে এক রোগী

  •  
  •  
  •  
  •  

বিবি নিউজ ওয়েবডেস্ক: কবরস্থ হতে গিয়েও হলেন না ২০ বছরের মহম্মদ ফারকান৷ তিনি ফের জীবিত হয়ে প্রমাণ করলেন তিনি মরেও মরেননি৷ এখন তিনি হাসপাতালের ভেন্টিলেশনে অবশ্য আরও একবার মৃত্যুমুখে পতিত। উত্তরপ্রদেশের লখনউ-এর বছর ২০-র যুবক মহম্মদ ফারকান ২১ জুন একটি বেসরকারি হাসপাতালে গুরুতর জখম অবস্থায় ভর্তি হয়েছিলেন৷ ২০ জুন সড়ক দুঘর্টনায় গুরুতর আহত হয়েছিলেন তিনি৷ সোমবার তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা৷ তাঁর দেহ মঙ্গলবার বাড়িতে অ্যাম্বুলেন্সে করে আসে৷ ওই দিন তাঁর পরিবারের লোকেরা তাঁকে সমাধিস্থ করার উদ্যোগ নেন৷ কবর ডেওয়ার ঠিক আগে দেখা যায় তাঁর আঙুল নড়ছে৷ তৎক্ষণাৎ তাঁকে রামমোহন লোহিয়া হাসপাতালে ভর্তি করা হয়৷ এখন তাঁকে ভেন্টিলেশনে রাখা হয়েছে৷

মহম্মদ ফারকানের দাদা মহম্মদ ইরফান জানান, আমরা বেসরকারি হাসপাতালতে ভাইয়ের চিকিৎসার জন্য ইতিমধ্যেই সাত লক্ষ টাকা খরচ করেছি৷ এরপরেও টাকা চাইলে তা আমরা দিতে পারিনি৷ তাই আমার জীবিত ভাইকে মৃত বলে ঘোষণা করেছে ওই বেসরকারি হাসপাতাল৷ স্পষ্ট অভিযোগ ইরফানের৷ লখনউ এর মুখ্য মেডিকেল অফিসার(সিএমও) নরেন্দ্র আগরওয়াল জানান, বেসরকারি ওই হাসপাতাল সম্পর্কে রোগীর পরিবারের অভিযোগ আমরা খতিয়ে দেখছি৷ এই অভিযোগ সত্যি হলে আইননানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দেন তিনি৷ তাঁর কথায়, ফারকানের এখনও মস্তিষ্ক মৃত্যু হয়নি৷ তবে এখনও তাঁকে বিপদ মুক্ত বলা যাবে না৷

শুধু টাকা মেটাতে না পারায় জীবিতকে মৃত বলে ঘোষণা করল যোগীর রাজ্যের বেসরকারি হাসপাতালের চিকিৎসক৷ কেন এমন হল? জানতে চাইছেন ফারুকানের দাদা ইরফান৷ তাঁর কথায়, আজ খেয়াল না করলে আমরা জীবিত ভাইকে কবর দিতাম৷ এই ঘটনার জন্য হাসপাতাল ও দোষী চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে কড়া শাস্তির দাবি করেছেন৷

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *