দেশ

বিদ্বেষ অপরাধ ও গণপিটুনির শিকারদের জন্য দেশব্যাপী হেল্পলাইন চালু অ্যাক্টিভিস্টদের

  • 1.2K
  •  
  •  
  •  
    1.2K
    Shares

বিবি নিউজ ডিজিটাল ডেস্কঃ অ্যাক্টিভিস্টরা বিদ্বেষ অপরাধ ও উচ্ছৃঙ্খল লোকদের হামলার শিকারদের জন্য হেল্পলাইন চালু করেছে। এ ধরনের ঘটনাগুলো নথিবদ্ধ করা ও শিকারদের আইনগত সহায়তা প্রদানই তাদের লক্ষ্য।ইউনাইটেড অ্যাগেইনিস্ট হেইট (ইউএএইচ) নামের অ্যাক্টিভিস্ট গ্রুপ ও ভারতজুড়ে থাকা নাগরিক সমাজের সদস্যরা বলছেন, কেন্দ্রীয় ও রাজ্য সরকারগুলো এ ধরনের ঘটনাগুলোতে হস্তক্ষেপ করতে ব্যর্থ হওয়ায় তারা এ উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন।

নয়া দিল্লিতে এক অনুষ্ঠানে অ্যাক্টিভিস্ট নাদিম খান বলেন, ভারতে দাঙ্গাবাজদের হামলা ও বিদ্বেষমূলক অপরাধ বাড়তে থাকার প্রেক্ষাপটে টোল-ফ্রি হেল্প লাইন (১৮০০-৩১৩৩-৬০০০০) চালু করেছেন।

ইউএএইচ জানিয়েছে, তাদের অ্যাক্টিভিস্টরা প্রায় ১০০টি নগরীতে বিদ্বেষমূলক অপরাধের শিকারদের সহায়তা করবে। এ ধরনের অপরাধের বেশির ভাগ শিকারই হচ্ছে মুসলিমরা। তারা ভারতের মোট জনসংখ্যার ১৯ ভাগ।

নাদিম খান বলেন, হামলার শিকারদের সহায়তা করার চেষ্টা করা হবে, তারা যাতে ন্যায়বিচার পান, সে চেষ্টাও করা হবে।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত আইনজীবী, সমাজকর্মী, অধ্যাপক, সাংবাদিক ও ধর্মীয় নেতারা বলেন, তাদের উদ্যোগটির বিপুল প্রয়োজন ছিল।
দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক অপূর্বানন্দ বলেন, কেবল মুসলিম, দলিত বা খ্রিস্টান হওয়ার কারণেই হিন্দু উগ্রবাদীরা তাদেরকে টার্গেট করছে। তিনি বলেন, বর্তমান ভারতের এটি দুঃখজনক বাস্তবতা। আমরা এই বাস্তবতা থেকে চোখ ফিরিয়ে রাখতে পারি না।

নরেন্দ্র মোদির বিজেপি ২০১৪ সালে ক্ষমতায় আসার পর থেকেই সংখ্যালঘুদের ওপর হামলা বাড়ছে। তবে বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, হিন্দু উগ্রবাদীদের মে মাসে নতুন করে বিজয়ের ফলে হামলা আরো বাড়তে পারে।

প্রধানত হিন্দুরা মুসলিম ও দলিতদের ওপর হামলা চালাচ্ছে, প্রকাশ্যে প্রহার করছে। অনেক স্থানে মুসলিমদেরকে জয় শ্রী রাম বলতে বাধ্য করা হচ্ছে। অনেক সময় কেবল মুসলিম বলেই নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন তারা।

গত মাসে যুক্তরাষ্ট্র আন্তর্জাতিক ধর্মীয় স্বাধীনতাবিষয়ক একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে। এতে বলা হয়, হিন্দু ডানপন্থীরা অহিন্দু ও দলিতদের বিরুদ্ধে নানা ধরনের ভীতিপ্রদর্শন ও হয়রানিমূলক তৎপরতা চালাচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *