আবহাওয়া

সুন্দরবন উপকূল দিয়ে বাংলায় ঢুকল আম্ফান, চালাচ্ছে ধ্বংসলীলা মৃত-২

  •  
  •  
  •  
  •  

বি.বি নিউজ ডিজিটাল ডেস্ক: কথা ছিল দুপুর নাগাদ ঢুকে যাবে সে। কিন্তু একটু বেশি সময় লাগলেও বিকেল চারটে সতেরো নাগাদ সুন্দরবন উপকূল দিয়ে বাংলায় ঢুকে পড়ল সুপার সাইক্লোন। এই মুহূর্তে সেখানকার ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ বোঝা সম্ভব নয়। সেখানে প্রায় ১৪০-১৫০ কিলোমিটার বেগে ঝড় বইছে। এদিকে বিকেলে সাড়ে চারটেতেই কলকাতায় ঝড়ের গতিবেগ ১০৫ কিলোমিটার। দিকে-দিকে পড়ছে গাছ। বাড়ি ভেঙে পড়ারও খবর মিলছে। এই পরিস্থিতিতে নবান্ন থেকে বিপজ্জনক এলাকায় বিদ্যুত বিচ্ছিন্ন করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। বিদ্যুৎ দফতর থেকেও দুই ২৪ পরগনার বেশ কিছু জায়গায় বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন রাখার নির্দেশ দিয়েছে। পিটিটিআই জানাচ্ছে ইতিমধ্যে ২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর ভিতরে হাওড়ার এক কিশোরী আছে।

আম্ফানের দাপটে প্রায় লন্ডভন্ড হয়ে যাচ্ছে রাজ্য। কলকাতার বিভিন্ন জায়গায় ভেঙে গিয়েছে ট্রাফিক সিগন্যালও। পরিস্থিতি এমনই, ওল্ড দীঘায় সমুদ্রের পাড়ে বোল্ডার থাকে, জলোচ্ছ্বাসের কারণে তা উঠে এসেছে একেবারে পাড়ে! শুধু তাই নয়, কলকাতাতেও সকাল থেকে বইছে ঝোড়ো হাওয়া। ইতুমধ্যে কলকাতার বহু রাস্তায় ভেঙে পড়েছে গাছ। পরিস্থিতি দেখে কলকাতার সমস্ত ফ্লাইওভার বন্ধ করে দিয়েছে প্রশাসন। জলের তোড়ে ভেসে গেল হাওড়া ফেরিঘাট। এই সমস্ত ঝড়ের সময় লঞ্চগুলিকে চেনের সাহায্যে বেঁধে রাখা হয়।

আমফানকে কেন্দ্র করে সোমবার কলকাতা পুরসভায় এক জরুরী বৈঠকের আয়জন করা হয়। ২৪ ঘণ্টার জন্য চালু করা হয় কন্ট্রোল রুমও। পাম্পিং স্টেশনগুলোতেও আগাম সতর্কতা জারী করা হয়েছে। এমনকি কলকাতারা বহু বিপদ্দজনক বাড়ি থেকে বাসিন্দাদের সরে আসার জন্যও বলা হয়েছে।গতিবেগ বেশি থাকার কারণে, পুরনো বাড়িও ভেঙ্গে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

এনডিআরএফ দলগুলি ইতিমধ্যে পশ্চিমবঙ্গে মোতায়েন করা হয়েছে বলেও জানানো হয়েছে। এ ছাড়া চারটি দলকে স্ট্যান্ডবাইতে রাখা হয়েছে, ওড়িশায় ১৩ টি দল মোতায়েন করা হয়েছে এবং ১৭ টি স্ট্যান্ডবাইতে রাখা হয়েছে। এছাড়াও সেনা, বিমানবাহিনী, নৌ ও কোস্টগার্ডের দলকেও সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে।

আবহাওয়া দফতর আগেই জানিয়েছিল, পাথরপ্রতিমা, ক্যানিং, ভাঙড়, মিনাখাঁ, হাড়োয়া, ধান্যকুড়িয়া, বসিরহাট, গোবরডাঙা, বনগাঁ, হেলেঞ্চার উপর দিয়ে ঘূর্ণিঝড়ের কেন্দ্র বাংলাদেশের দিকে এগোতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *