দেশ

অসমে NRC’র দায়িত্বপ্রাপ্ত অফিসার প্রতীক হাজেলার বিরুদ্ধে ১৬০০ কোটি টাকার দুর্নীতির খোঁজ পেল ক্যাগ

  • 891
  •  
  •  
  •  
    891
    Shares

বি.বি নিউজ ওয়েব ডেস্ক, 02 ডিসেম্বর 2019ঃজাতীয় নাগরিক পঞ্জির(NRC) তালিকা প্রস্তুত প্রক্রিয়াতে কোটি কোটি টাকার অসঙ্গতি ধরা পড়েছে। Comptroller and Auditor General এই অসঙ্গতি সনাক্ত করেছে। সম্প্রতি অসমের অর্থমন্ত্রী হেমন্ত বিশ্বশর্মা একথা জানিয়েছেন।

অর্থমন্ত্রীর কথায়, ২০১৫ সাল থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত NRC-র আপডেট প্রক্রিয়াতে প্রায় ১,৬০০ কোটি টাকার কেলেঙ্কারি হয়েছে। এই সপ্তাহেই বিধানসভাতে এই রিপোর্ট প্রকাশ করা হবে।

বৃহস্পতিবার আসামের অর্থমন্ত্রী জানিয়েছিলেন, “রাজ্যে NRC প্রক্রিয়ায় প্রচুর অনিয়ম ও অসঙ্গতি খুঁজে পেয়েছিল CAG।‌ তিন বছর আগে NRC অফিস পরিদর্শন করেছিলেন CAG-এর অফিসাররা। তখন এই অসঙ্গতির কথা জানিয়ে আসামের CAG স্বাক্ষরিত একটি পরিদর্শন নোট দেন অফিসাররা। NRC প্রক্রিয়া চলছিল বলে এই কথা প্রকাশ‍্যে আনা হয়নি এতোদিন। এবার চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশিত হয়েছে। আগামী সপ্তাহেই রাজ‍্য বিধানসভায় CAG-এর রিপোর্ট প্রকাশ করা হবে। রিপোর্টে বলা হয়েছে NRC আপডেট প্রক্রিয়াতে প্রায় ১,৬০০ কোটি টাকার অসঙ্গতি ধরা পড়েছে। আমি ফাইলটি পড়ে দেখেছি। ১৬টি ক্ষেত্রে অসঙ্গতির কথা জানিয়েছে CAG।”

গত মাসেই ১৯৯৫ ব্যাচের আইএএস অফিসার প্রতীক হাজেলাকে মধ্যপ্রদেশে বদলির নির্দেশ দেয় শীর্ষ আদালত। চলতি বছরের ১২ নভেম্বর তাঁকে অসমে নাগরিকপঞ্জির তালিকার দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।

এফআইআরে বলা হয়েছে, হাজেলা বিপুল পারিশ্রমিকের বিনিময়ে বেশ কয়েকজন অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মীকে নিয়োগ করেছিলেন এনআরসির তালিকা সংশোধনের কাজে। তাঁদের নতুন গাড়িও দেওয়া হয়। এমনকী হিসেবে দেখানো হয়েছে, প্রায় ১০ হাজারের মতো ল্যাপটপ কেনা হয়েছিল এই কাজে। যার প্রত্যেকটি দাম পড়েছে প্রায় ৪৪ হাজার ৫০০ টাকা করে।

অসমে এনআরসির তালিকা থেকে বিপুল পরিমাণ হিন্দুর নাম বাদ পড়ায় যথেষ্ট চাপে রয়েছে অসমের বিজেপি সরকার। চাপে রয়েছে কেন্দ্রও। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ ইতিমধ্যেই ইঙ্গিত দিয়েছেন, গোটা দেশে চালু করা হবে এনআরসি, সেই সঙ্গে পুনর্মূল্যায়ন করা হতে পারে অসমের এনআরসি তালিকাও।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *