অর্থনীতি বিভাগ

ইংল্যান্ডে হায়দ্রাবাদের নিজামের গচ্ছিত ৩ হাজার কোটি টাকার অর্থ ভারতই পাবে জানাল সেদেশের আদালত

  • 829
  •  
  •  
  •  
    829
    Shares

বি.বি নিউজ ডিজিটাল ডেস্কঃ এ এক অন্য রকমের লড়াই ৷ সম্মান রক্ষার লড়াই ৷ দাবি প্রতিষ্ঠার লড়াই ৷ যে লড়াইয়ে শেষ হাসি হাসল দিল্লি ৷ হায়দরাবাদের প্রয়াত নিজামের 3 কোটি 50 লাখ পাউন্ডের অধিকার নিয়ে আইনি লড়াইয়ে জয়ী হল ভারত। আদালতের রায় অনুসারে নিজামের রাখা ১০ লক্ষ পাউন্ড পাবে ভারত। সুদ-আসলে এখন সেটার মূল্য প্রায় সাড়ে তিন কোটি পাউন্ড। ভারতীয় মূদ্রায় যা প্রায় ৩০৬ কোটি টাকা। এই টাকা গচ্ছিত ছিল ব্রিটেনের ব্যাঙ্কে ৷ এই অর্থের উপর নিজেদের দাবি জানিয়ে আদালতে গিয়েছিল দিল্লি ও ইসলামাবাদ৷

পাকিস্তানের বহু দশকের এই দাবি বুধবার খারিজ করে দিল ব্রিটিশ হাইকোর্ট । তারা স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে, পাকিস্তান নয়, ওই অর্থের উত্তরাধিকারী একমাত্র নিজামের বংশধরেরা। ঘটনার সূত্রপাত 1948 সালে ৷ হায়দরাবাদের তৎকালীন নিজাম ওসমান আলি খান ব্রিটেনে মোতায়েন পাকিস্তানের হাই কমিশনার হাবিব ইব্রাহিম রহিমতুল্লারের কাছে গচ্ছিত রাখেন ১ কোটি ৭ হাজার ৯৪০ পাউন্ড এবং ৯ শিলিং। সেই অর্থ এতদিনে বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৫ মিলিয়ন পাউন্ডে(২৯৯৪কোটি)। উদ্দেশ্য ছিল নিরাপত্তা ৷ পরবর্তীতে হায়দরাবাদ ভারতের সঙ্গে যুক্ত হওয়ায় সেই অর্থ ফেরৎ চান নিজামের বংশধরেরা ।

দেশ ভাগের পরে হায়দরাবাদ নিয়ে ভারত-পাকিস্তানের দড়ি টানাটানি হয়। পাকিস্তানপন্থী হয়েও নিজাম ওসমান আলি খান পরে থেকে যান ভারতেই। তাঁর শেষ জীবন কাটে ভারতেই। ১৯৬৭ সালে হায়দরাবাদের নিজামদের প্রাসাদেই তাঁর মৃত্যু হয়।

ওসমান আলি খানের জীবদ্দশায় ওই টাকা ফেরত দেওয়ার কথা হয়েছিল। কিন্তু তা করেনি ব্রিটেনের পাক হাইকমিশন। তখন থেকেই পাকিস্তানের হাইকমিশনার হাবিব ইব্রাহিম রহিমতোলার ন্যাটওয়েস্ট ব্যাঙ্কের অ্যাকাউন্টে ওই বিপুল অর্থ গচ্ছিত ছিল। নিজামের ওই অর্থ নিজেদের বলেই দাবি করে আসছিল পাকিস্তান।

২০১৩ সালে পাকিস্তান‌ দাবি করে, নিজাম ওসমান আলি খানের ওই অর্থ তাদের সরকারের প্রাপ্য। লন্ডনের ‘রয়্যাল কোর্টস অব জাস্টিস’-এ বিচারক মার্কাস স্মিথ পাকিস্তানের দাবি ‌নাকচ করে জানিয়ে দেন, এই দাবির সপক্ষে তেমন কোনও প্রমাণ মেলেনি। তাই নিজামের ওই সম্পত্তিতে পাকিস্তানের কোনও অধিকার নেই।

এই সম্পত্তির ন্যার্য দাবিদার হিসাবে নিজামের বংশধর প্রিন্স মুকাররম জাহ মামলায় অংশ নিয়েছিলেন। ভারতীয় প্রিন্স মুকাররম এই মামলায় ভারতের হয়েই লড়াই করেছেন। গত বুধবার সেই মামলার রায় দিয়েছে লন্ডন হাইকোর্ট। আর তা গিয়েছে ভারতের পক্ষে। আদালতের পক্ষ থেকে সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়েছে যে নিজামের ওই সম্পত্তিতে পাকিস্তানের কোনও অধিকার নেই। এ দিন আদালত জানিয়ে দেয়, নিজামের বংশধরই ওই টাকার অধিকারী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *