আজব দুনিয়া

তাজমহলের তিনগুণ আয় করছে সর্দারের মূর্তি! তাজমহলকে হেয় করে ভুয়ো তথ্য রটছে সোশ্যাল মিডিয়ায়

  •  
  •  
  •  
  •  

বি.বি নিউজ ওয়েবডেস্ক: ভারতে পর্যটকদের সেরা আকর্ষণ বলতে প্রথমেই মাথায় আসে তাজমহলের নাম। শুধু ভারতীয়দের নয়, বিশ্বের পর্যটকদের কাছে অন্যতম আকর্ষণীয় গন্তব্যস্থান হল তাজমহল। দুনিয়ার সাতটি আশ্চর্য জিনিসের মধ্যে একটি এই মুঘল স্থাপত্যকীর্তি থেকে কোটি কোটি টাকা আয় হয় কেন্দ্র সরকারের। কিন্তু সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় পইপই করে দাবি উঠেছিল গুজরাটে নির্মিত সর্দার বল্লভভাইয়ের মূর্তি বা স্ট্যাচু অব ইউনিটি থেকে গত তিনবছরে তাজমহলের তিন গুণ বেশি টাকা আয় হচ্ছে। অনেকেই বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ায় ফলাও করে এই তথ্য ছড়িয়ে যাচ্ছিলেন। কিন্তু খোদ সরকারি পরিসংখ্যানই জানাচ্ছে, এই তথ্য একেবারেই ভুল। বস্তুত, এ নিয়ে ভুয়ো খবর রটে বেড়াচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

সোশ্যাল মিডিয়ায় দাবি করা হয়েছিল, ২০১৬ থেকে ’১৯-এর মধ্যে তাজমহল থেকে আয় হয়েছে ২২.৩ কোটি টাকা। সেখানে প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনের পর মাত্র একবছরেই ৭১.৬ কোটি টাকা কোষাগারে এনেছে সর্দারের মূর্তি। এর সঙ্গে বলা হচ্ছিল, প্রতি বছর গড়ে ৭.৫ লক্ষ পর্যটক তাজমহল ভ্রমণে আসেন, সেখানে এ বছর অক্টোবরের শেষ পর্যন্ত ২৬ লক্ষ পর্যটকের সমাগম ঘটেছে সর্দারের মূর্তি দেখতে। কিন্তু পর্যটন দফতরের পরিসংখ্যান একদমই অন্য হিসাব দেখাচ্ছে।

লোকসভার প্রকাশিত রিপোর্টে স্পষ্ট দেখানো হয়েছে, ২০১৮-১৯ মরসুমে তাজমহল দর্শনে এসেছেন ৬৮ লক্ষ পর্যটক যা সোশ্যাল মিডিয়ায় করা দাবির প্রায় ন’গুণ। আর ২২.৩ কোটি নয়, প্রেমের সৌধ থেকে এই মরসুমে সরকারের আয় হয়েছে ৭৭ কোটি টাকা। গত তিন বছরের হিসেব করলে গড়ে ৬১.৪ কোটি। বল্লভভাই প্যাটেলের ১৮২ মিটার দৈর্ঘ্যের মূর্তি আদৌ তিনগুণ বেশি আয় করেনি কারণ সরকারি পরিসংখ্যান থেকে জানা যাচ্ছে এই মূর্তি আয় করেছে ৮০ কোটির সামান্য বেশি যা ৬১.৪ কোটির তিনগুণ হতে পারে না। এর পাশাপাশি একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল, তাজমহল দেখতে ভারতীয় পর্যটকদের মাথাপিছু ৫০ টাকা খরচ করতে হয় সেখানে সর্দার প্যাটেলের মূর্তি দেখতে দিতে হয় ১২০ টাকা, যা দ্বিগুণেরও বেশি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *