মহানগর

মেট্রোর দরজায় হাত আটকে গেল যাত্রীর, টেনে হিঁচড়ে ছুটল ট্রেন, মর্মান্তিক মৃত্যু বৃদ্ধের

  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব সংবাদদাতা, বিবি নিউজ: বন্ধ হতে যাওয়া মেট্রো রেলের দরজা কিংবা লিফটের দরজার মাঝখানে হাত বাড়িয়ে দেন অনেকেই । সাধারন ভাবে এই অবস্থায় দরজা ফের খুলে যায় । কারন দরজায় লাগানো থাকে সেন্সর যা দুটি পাল্লার মাঝখানে বস্তুর উপস্থিতি টের পেয়ে পাল্লা দুটিকে সরে যেতে নির্দেশ দেয় । কিন্তু এই সেন্সর যদি কাজ না করে তবে কি মারাত্মক হতে পারে তা চোখে দেখল শনিবার সন্ধ্যার কলকাতা ।

শনিবার সন্ধে ৬টা ৪০ নাগাদ পার্ক স্ট্রিট স্টেশনে কবি সুভাষগামী মেট্রোয় এভাবেই হাত আটকে গিয়ে মর্মান্তিক মৃত্যু হল এক যাত্রীর। এদিন দমদম থেকে কবি সুভাষ যাওয়ার পথে পার্ক স্ট্রিট স্টেশনেই ঘটে দুর্ঘটনা৷ এই সময়ই অফিস থেকে ফেরেন নিত্যযাত্রীরা৷ ফলে মেট্রোয় ভিড়ও ছিল৷ এমন পরিস্থিতিতে পার্ক স্ট্রিট স্টেশন থেকে এক ব্যক্তি মেট্রোটিতে ওঠার চেষ্টা করেন৷ ঠিক সেই সময়ই দরজায় হাত আটকে যায় তাঁর৷ সাধারণত, মেট্রোর দরজায় কোনও বস্তু আটকে গেলে দরজা নিজে থেকেই খুলে যায়৷ এক্ষেত্রে তেমনটা হয়নি৷ নতুন রেকের মেট্রো যাত্রীর আটকে যাওয়া হাত নিয়েই এগিয়ে যায়৷ ওই অবস্থাতেই চলতে শুরু করে ট্রেন । কখনও কংক্রিটের স্ল্যাব , কখনও পাথরে ঘসটাতে থাকে দেহ । খানিকটা ওই অবস্থায় যাওয়ার পর বিষয়টি টের পান চালক৷ ততক্ষণে স্টেশনের গ্রিলে ধাক্কা খেয়ে পড়ে যান । থার্ড লাইনের ইলেকট্রিক সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে বেশ কিছুক্ষণের চেষ্টায় ওই ব্যক্তিকে উদ্ধার করা হয়৷ পরে এসএসকেএম হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে ওই ব্যক্তিকে মৃত বলে ঘোষণা করা হয়৷

এদিকে, ট্রেন ছাড়ার কয়েক সেকেন্ড পরই যাত্রীদের নিয়ে প্রায় কুড়ি মিনিট একই জায়গায় দাঁড়িয়ে ছিল মেট্রোটি৷ যাত্রীরা কিছু না বুঝে দিশেহারা হয়ে পড়েন৷ কামরার ভিতরের প্যানিক বোতাম থেকে টকব্যাক, সে সময় কোনও কিছুই কাজ করছিল না৷ নতুন রেকের এমন বেহাল অবস্থা ফের যাত্রী নিরাপত্তা নিয়ে নিঃসন্দেহে প্রশ্ন তুলে দিল৷ মিনিট কুড়ি পর যাত্রীদের পিছনের দরজা দিয়ে নামতে বলা হয়৷ স্টেশনে নেমে পুরো ঘটনা জানতে পারেন তাঁরা৷ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ এবং মেট্রো রেল কর্তৃপক্ষ ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *